আইপিএলের বাকি অংশে তারকা ক্রিকেটারদের নিয়ে শঙ্কা!

সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) বাকি অংশ মাঠে গড়াতে যাচ্ছে আগামী সেপ্টেম্বর থেকে। এই সময়টায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ব্যস্ত সূচি থাকায় আইপিএলে বিদেশী ক্রিকেটারদের পাওয়া নিয়ে রয়েছে ধোঁয়াশা। এবার আইপিএল আয়োজকদের দুশ্চিন্তার কারণ হতে চলেছে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটাররা।

সেপ্টেম্বরের শুরুতে সাদা বলের সিরিজ খেলতে শ্রীলঙ্কা সফরে থাকবে দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় ক্রিকেট দল। আগামী ২ থেকে ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত লঙ্কানদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শুরু করবে প্রোটিয়ারা। ওয়ানডে সিরিজ শেষে ১০ সেপ্টেম্বর থেকে ১৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে দল দুটি।

এদিকে আইপিলের বাকি অংশ শুরু ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে। অর্থা শ্রীলঙ্কার সিরিজ শেষ হওয়ার করে আইপিএলে যোগ দিতে প্রোটিয়া ক্রিকেটাররা সময় হাতে পাবে ৫ দিন। আমিরাতের কোয়ারেন্টাইন নিয়ম বলছে, বহিরাগতদের দেশটিতে প্রবেশের জন্য অন্তত ১০ দিনের হোটেল কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

সে হিসেবে আইপিএল শুরুর বেশ কয়েকদিন আগেই দেশটিতে জৈব সুরক্ষা বলয়ে ঢুকে পড়বেন দলগুলোর খেলোয়াড়রা। কিন্তু আমিরাতে নির্দিষ্ট সময়ে দলের সঙ্গে বায়োবাবলে প্রবেশ করা প্রোটিয়া ক্রিকেটারদের জন্য অনেকটাই কষ্টসাধ্য।

আইপিএল আয়োজকদের বিপত্তির এখানেই শেষ নয়। ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (সিপিএল) আসর। তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটারদের প্রধান মনোযোগ থাকবে নিজেদের ঘরোয়া লিগে। আসরটি শেষ করে ক্যারিবীয় ক্রিকেটাররা আইপিএলের শুরুর অংশে খেলতে পারবে কিনা সেটাও তো অনিশ্চিত।

তাই বিকল্প হিসেবে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) সঙ্গে আলোচনা সেরেছে বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই)। আইপিএলের শুরুতে অন্তত ইংলিশ ক্রিকেটারদের পেতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বিসিসিআই। যদিও বিসিসিআইকে হতাশ করে ইসিবি জানিয়েছে যে, আমিরাতে ইংলিশ ক্রিকেটারদের পাওয়া যাবে না। তবে বিষয়গুলো সমাধানে দুই বোর্ডের মধ্যে আলোচনা এখনো চলমান রয়েছে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*