অবশেষে তালেবান পরিস্থিতি নিয়ে মুখ খুললেন ইরান!

ইরান বলেছে, অ’স্ত্রের জোরে নয় বরং একমাত্র রাজনৈতিক আলোচনার মাধ্যমে আফগানিস্তানের তালেবান আন্তর্জাতিক গ্রহণযোগ্যতা পেতে পারে। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক মহাপরিচালক সাইয়্যেদ রাসূল মুসাভি এ মন্তব্য করেছেন।

ইরানে সম্প্রতি তালেবানের সঙ্গে আফগান সরকারের যে আন্তঃআফগান সংলাপের আয়োজন করা হয়েছিল তা অত্যন্ত সফল হয়েছে বলে জানান মুসাভি। তিনি বলেন, অতীত অভিজ্ঞতা থেকে তালেবান ভালো করে জানে, শুধুমাত্র সামরিক শক্তি দিয়ে তাদের পক্ষে আন্তর্জাতিক গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করা সম্ভব নয়।

১৯৯৬ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তান শাসন করেছিল তালেবান। কিন্তু বিশ্বের তিনটি দেশ ছাড়া অন্য কোনো দেশ তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি।
ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী বলেন, আমেরিকা আন্তঃআফগান সংলাপের বিরোধী ছিল এবং

সাম্রাজ্যবাদী এই দেশটি কখনোই চায়নি আফগান সরকারে সঙ্গে তালেবান সংলাপে বসুক। আর এই মার্কিন দুরভিসন্ধিমূলক নীতির কারণেই আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। আফগানিস্তানের শান্তি, নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা ইরানের জাতীয় নিরাপত্তার ওপর সরাসরি প্রভাব ফেলে বলে জানান সাইয়্যেদ মুসাভি।

তিনি বলেন, এ কারণে ইরান কোনো অবস্থায়ই আফগানিস্তানে আরেকটি গৃহযুদ্ধ দেখতে চায় না। এ কারণে আফগানিস্তানে শান্তি, নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠার জন্য তেহরান চেষ্টা চালিয়ে যাবে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*